বিশ্বের সেরা ৪ টি জেল

হ্যালো বন্ধুরা

আচ্ছা জেল শব্দটি শুনলেই কিসের ছবি আপনার মাথা সর্বপ্রথম ভেসে ওঠে ?

নিশ্চয়ই কোন একটা রঙিন সাদামাটা গন্ধ ভরা আর ভয়ানক পরিবেশকে ফুটিয়ে তোলে আপনার মস্তিষ্কে। তবে আপনি কি জানেন সাধারণত জেলচিত্র এমনটা হল পৃথিবীতে এমন কিছু জিনিস আছে যেগুলো আপনার ধারণার ধারেকাছেও নয়। এদের কোনটাই রয়েছে বিলাসবহুল সব ব্যবস্থা আবার কোন কাছে সর্বসাকুল্যে মাত্র দুজন কয়েদি । কেবল এই দুজনই নয় পৃথিবীতে অদ্ভুত রকমের এমন আরো অনেক জেল রয়েছে ।

san pedro jail

সান পেড্রো জেল বলিভিয়ায় অবস্থিত । এই জেলের বিশাল ভারি দেয়ালের ওপাশে যাওয়া মাত্রই এতদিন ধরে জেলের প্রতি জন্মানো সব ধরনের আতঙ্ক কেটে যাবে আপনার । পাল্টে যাবে আপনার ধারনা। কী নেই এখানে । রেস্টুরেন্ট ভালোবাসা কেবল টিভির দোকান শপিং মল থেকে শুরু করে সবকিছুই পায় এখানকার কয়েদিরা । তবে এসব কিছুই আপনি পাবেন একমাত্র যদি আপনার পকেটেই থাকে যথেষ্ট পরিমান টাকা।

হ্যাঁ ঠিকই শুনছেন আর সব জেলের মত বিনা পয়সায় নয় বরং টাকা দিয়ে কিনে নিতে হয় এই জেলের আরাম-আয়েশ আর থাকার ব্যবস্থা । আরে টাকা আপনাকে উপার্জন করতে হবে জেলের ভিতরেই কাজ করে । কি ভাবছেন যাবেন নাকি একবার এই অন্যরকম জেলে।

হেলেন প্রিজন নড়েওয়ে

এইজেল নরওয়েতে অবস্থিত । আর এই জেলের ভেতরে আছে বড় বড় রুম প্রাইভেট রুম বাথরুম লাইব্রেরী টেলিভিশন ছাড়াও অনেক কিছু । যা কোন সাধারন পরিবারের পক্ষে এত সহজে ম্যানেজ করা সম্ভব নয় । আর এই সকল রকম সুবিধা এই জেলের ভেতরে রয়েছে । এমনকি জেলের ভেতরে ডিউটিতে থাকা পুলিশের সাথে অবসর সময়ে গল্প করতে পারবেন বা ভিডিও গেম খেলতে পারবেন।

bastoy prison norway

এই জেল নরওয়ে  শহরে রয়েছে । এখানে আপনি ব্যাডমিন্টন টেনিস ঘোড়ায় চড়া বিলের পাশে শুয়ে থেকে আয়েশ করা স্ক্রিন টিভি ওয়াইফাই কানেকশন ভিডিও গেম খেলা এসব কিছুই করতে পারবেন । ওহে আইস স্কেটিং করতে পারবেন । আর এই সবই আপনি টাকা দিয়ে না বরং অপরাধ করলে পাবেন । যদি আপনি এই ধরনের লাইফ হিস্টরি পছন্দ করে থাকেন তবে আপনি বিনা চিন্তায় সারা জীবন কাটিয়ে দিতে পারবেন এখানে । আচ্ছা আপনি গেস করুন তো আমাদের দেশে এরকম একটা রুম হোটেল বুকিং করতে গেলে কি রকম খরচ হতে পারে ? আরো একটা কথা এখানে প্রতিটি অপরাধীকে চুল কাটা যত্ন নেয়া বডি মাসেজ এর জন্য আলাদা আলাদা লোক বরাদ্দ করা থাকে । এমন জেল আমাদের দেশে থাকলে হয়তো আমাদের জন্য ভালই হতো।

আরও পড়ুনঃ এই আজব গাড়িগুলো রাস্তায় বের হলে যে কেউ তাকিয়ে থাকে

দুই জনের জেল

অতিরিক্ত কয়েদির কারণে প্রায়ই অনেক জেলের নাম ছাপা হয় পত্রিকায় । কিন্তু কেমন লাগবে এমন জেলের কথা শুনতে যেখানে কিনা কয়েদি আছে মাত্র দুজন । লন্ডন আর ফ্রান্সের ভেতরে অবস্থিত এই জেল।  আদৌ কখনোই খুব বেশি একটা কয়েদি ছিল না।  থাকবে বা কি করে 600 জন মানুষের দ্বারা তৈরি করা হয়েছে কোন দুটা মানুষকে আটকানোর মতো করে । প্রথম দেখায় আপনি এটাকে ছোটখাটো কোনো বিশ্রামঘর বাথরুম ভেবে ভুল করে বসতে পারেন। তবে নির্মাতাদের বোকামি কিংবা স্থানের অপ্রতুলতার কারণে যে কারণেই হোক পৃথিবীতে সবচাইতে ছোট হিসেবে পৃথিবীতে নামকরা এই স্টার্ট জেল।

মানসিক রোগের কারাগার

এমন একটা জেলখানার কয়েদির এত বেশি মানসিক সমস্যায় জর্জরিত যে তাদের জন্য আলাদা করে একটা মানসিক চিকিৎসালয়ে নির্মাণ করতে হয়েছে কতৃপক্ষকে। কি ভাবছেন কোথায় জেলখানা টি ? এই জেলের অবস্থান আমেরিকার পেলিকানভেলে। আসলে স কয়েদি কে সবসময় রাখা হয় অন্ধকার ঘরের ভেতরে । দিনের টানা 22 ঘন্টা জেগে থাকতে হয় তাদের এই অন্ধকার আলোর মাঝে । সম্পতাহে একবার খোলা আকাশের নিচে বের হতে দেয়া হয় তাদের।  কি ভাবছেন এর আগে থেকেই মানসিক রোগী ছিল তাই এদের জেলায় আনা হয়েছে সুস্থ করার জন্য ? না তবে ভুল ভাবছেন এরা জেলে এসেই জেলের এসব কর্মকাণ্ডের শিকার হয়েই আস্তে আস্তে মানসিক রোগীতে পরিণত হন।

Leave a Comment